জয় হোক উদ্যমে উত্তরণে শতকোটি জয় হোক নারীবাদ-এর

নাহিদ সুলতানা

জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী সারা পৃথিবীর প্রতি ৩ জন নারীর মধ্যে ১ জন নারী ধর্ষণ বা শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে থাকে। যার পরিমাণ পৃথিবীতে বসবাসরত শতকোটি নারীর চাইতেও বেশী। বাংলাদেশে প্রতিদিন প্রায় ৪০জন নারী কোননা কোনভাবে সংহিতার শিকার হচ্ছে । (বাংলাদেশ পুলিশের প্রধান কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী) ।যার মধ্যে এসিড নিক্ষেপ, অপহরণ, ধর্ষণ, ধর্ষণ পরবর্তী হত্যা, পাচার, খুন, যৌতুকের জন্য নির্যাতন, পারিবারিক নির্যাতন, ইভ-টিজ, কন্যা শিশুর প্রতি অবহেলা, বাল্য বিবাহ, কন্যা ভ্রণ হত্যা, নারীশ্রমিকের মজুরি বৈষম্য, নারী-পুরুষের বৈষম্যমূলক অবস্থানসহ আরো বহুধরণের মানসিক ও পাশবিক নির্যাতন অন্যতম। যেহেতু বাংলাদেশে বেশীরভাগ নারী নির্যাতনের ঘটনা নথিভুক্ত করা হয়না, সেহেতু প্রকৃত সংখ্যাটি জানা এখনো আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।

আমার মনে হয় শুধু আমাদের দেশ কেন ?পৃথিবীর যেকোন দেশে ‘‘নারী নির্যাতন”বিষয়টি অতি পরিচিত। সামাজিক আন্দোলন ও নারী আন্দোলনের সাথে যারা যুক্ত, তারা যুগ যুগ ধরে এই নির্যাতন রোধে কাজ করে আসছেন। কোথায়, কিভাবে, আর কেন, এই নারী নির্যাতন হচ্ছে তা বুঝতে চাওয়া হয়েছে। অনুশাসন-নিয়ম-সংস্কার, পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা, সতীদাহ-বাল্যবিবাহ, বহুবিবাহ, যৌতুক-পণপ্রথা, শিক্ষার অধিকারহীনতা, নারী স্বাধীনতা রোধ -এইসব হীন উপায়ে নারী দমণ ও পীড়ণ হযে আসছে। দিনে দিনে আজ আমরা যেখানে এসে দাঁড়িয়েছি, সেখানে নারীর কিছুকিছু অধিকার অর্জিত হলেও সবাই তা ভোগ করতে পারছেনা। সাধারণ মানুষ আর সকল অধিকারের মতো তাই নারীর অধিকার বিষয়ে ধীরে ধীরে সচেতন হচ্ছে। তবে তারই পাশাপাশি বিরূদ্ধ-শক্তিও রুখে দাঁড়াচ্ছে বারবার। হরণ করছে নারীর অধিকার। ফতোয়া দিয়ে নৃশংসভাবে নারীহত্যা আজও তাই চলছে।

সমাজে সকল শুভশীল মানুষের গভীরতর দায় হিসাবে আমরা দেখছি বিষয়টিকে। কেবল নারীরই চেতনা হুঁশ হলে চলবেনা, নারী-পুরুষ মিলেই-তো সমাজ চলে। তাই পুরুষকেও এগিয়ে আসতে হবে। পুরুষের প্রতি বিদ্বেষ নয় -পুরুষতন্ত্রে প্রতি নিয়ত আঘাত হানতে হবে। সেই কাজে সমভাবে পুরুষও হাত মিলাবে। নারী একা হলে আরও দূর্বল হয়ে পড়বে। দুইয়ে মিলে একত্র হয়েই কেবলসম্ভব এইসব দুরাচার শেষ করা। আমরা বিশ্বাস করি, ঘরে-বাইরে এ এক অব্যাহত প্রক্রিয়া। নারী-পুরুষের মিলিত প্রয়াসই মনুষ্যত্ব-অর্জন-পথ।

সারাবিশ্বেই নারী আন্দোলন চলছে অনেকদিন ধরে। তার নানা  ধারা আছে, আছে নানা মত-পথ। এই কাজের ঐতিহাসিক ধারার সঙ্গে আমাদের পরিচিত ও যুক্ত হতে হবে। যুক্ত হয়ে নিজেদের মতো করে, নিজেদের উপযোগী পথ খুঁজে পেতে হবে। অনুকরণ এড়িয়ে সমাধানের পথ শেষ পর্যন্ত—নিজেদেরই বের করতে হবে। তবে অন্যের ভাবনা –মত পথ জানতে হয় এবং এই জানাটা খুবই জরুরী। তাতে আমাদেরই সাহায্য হয়।

নারীর জীবন-সংগ্রাম, সমস্যা-সংকট, বৈষম্যমূলক অবস্থান, অধিকারহীনতা ইত্যাদি বিষয় আমরা যদি বুঝি তাহলে দেখবো যে, এটি কেবল  ‘নারীর নিজস্ব  বিষয়’নয়। এটি একটি সমাজ উন্নয়নের বিষয়। নারীর উন্নয়ন না ঘটলে সমাজের উন্নয়ন সম্ভব নয় এই বিষয়টি আজ পরিষ্কার। নারী নির্যাতনকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে দীর্ঘদিন ব্যাপী শক্তিশালী নারীবাদী আন্দোলন গড়ে উঠেছে। এই আন্দোলনকে আরও বেগবান করতে দেশের নারী ও পুরুষের প্রতিনিধিত্বে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে-‘উদ্যমে উত্তরণে শতকোটি আন্দোলনে’ যোগদান করে নির্যাতনের মূলে আঘাত হানতে। ‘উদ্যমে উত্তরণে শতকোটি’ নারীর প্রতি সহিংসতা ও বৈষম্য নিরসনে  “ভি-ডে”এর একটি আন্তর্জাতিক উদ্যোগ। আমাদের কাছে ‘উদ্যমে উত্তরণে শতকোটি’ একটি প্রত্যয়, একটি বিশ্বাস। এটি একটি সম্মিলিত প্রয়াস। নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতন বন্ধে বিশ্বপ্রচারণার সাথে সংহতি জানাতে দক্ষিণ এশিয়াসহ আরও ১৬০ টি দেশে এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এর মধ্যে আমাদের মা, বোন, মেয়ে, বৗ, প্রেমিকা এবং বন্ধুরা যে নিপীড়ণ, নির্যাতন ও ভোগান্তির মধ্যে দিয়ে জীবন অতিবাহিত করেছেন আমরা তা প্রতিহত করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করছি।

আমরা বলতে চাই একজন নারীকে কোন ধরনের নির্যাতন করার আগে  আমরা যেন মনে রাখি, এই নির্যাতনটি আসলে নিজেকেই করা। মানুষ হয়ে আপনি যদি অন্য মানুষটিকে সম্মান না করেন, মর্যাদা না দেন  তাহলে, আপনার সম্মান ও মর্যাদাহানী হওয়ার সম্ভবনা থেকেই যায়। নারী কেবল নারী হওয়ার কারনে কোন ধরনের নির্যাতনের শিকার হতে পারেনা। শুধুমাত্র নারী হওয়ার কারনে, জীবনের শুরু থেকে শেষপর্যন্ত—পুরুষ অথবা পুরুষতান্ত্রিকতার বেড়াজালে নারীকে নানা বিড়ম্বনার মুখমুখি হওয়ার নানাচিত্র আমরা দেখে এসেছি -যার অবসান আমরা চাই। চাই, সম্মিলিতভাবে এর বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে।  আসুন ঘর এবং কর্মস্থলের বাইরে এসে আজ তাই জোর কণ্ঠে আওয়াজ তুলি – “যথেষ্ট হয়েছে, আর নয়, এই বর্বর সহিংসতা বন্ধ কর এখনই!”

Nahid Sultana is a lawyer and gender activist, working in a private company. She is a proud feminist, a member of Sangat Bangladesh and a part of One Billion Rising Bangladesh.

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s